সেই বৃদ্ধ করোনা আক্রান্ত নন : মানসিক হাসপাতালে ভর্তি

মঙ্গলবার, ০৫ মে ২০২০ | ৭:৪৭ অপরাহ্ণ | 159 বার

সেই বৃদ্ধ করোনা আক্রান্ত নন : মানসিক হাসপাতালে ভর্তি
Advertisements

পাবনার বেড়া উপজেলার দুর্গম চরে অসুস্থ অবস্থায় ফেলে রেখে যাওয়া সেই বৃদ্ধ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবে তাঁর নমুনা পরীক্ষার ফল পাওয়ার পর বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মানসিক ভারসাম্যহীন ওই বৃদ্ধের স্বজনদের খোঁজ না পাওয়ায় তাঁকে মঙ্গলবার (০৫ মে) সকাল ১১টার দিকে পাবনা মানসিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নে অবস্থিত যমুনা নদীর দুর্গম চরসাফুল্যা গ্রামে মানসিক ভারসাম্যহীন এক বৃদ্ধকে (৭০) ফেলে রেখে যাওয়া হয়। ওই বৃদ্ধের শরীরে জ্বর, সর্দি, কাশিসহ করোনাভাইরাসের উপসর্গ ছিল। এলাকাবাসীর ধারণা করোনাভাইরাসের উপসর্গ থাকার কারণেই যাত্রীবাহী কোনো নৌকা থেকে ওই বৃদ্ধকে সেখানে নামিয়ে দেওয়া হয়।

অসুস্থ হয়ে তিনি গ্রামের একটি বাড়ির কাছে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকলে এলাকাবাসী উপজেলা প্রশাসনকে খবর দেন। গত ২০ এপ্রিল ইউএনও এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশনে ভর্তি করে রাখা হয়। এর পরদিন তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োজি বিভাগের ল্যাবে পাঠানো হয় পরীক্ষার জন্য। গত শুক্রবার (০১ মে) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ রিপোর্টের ফলাফলে জানতে পারে ওই বৃদ্ধ করোনায় আক্রান্ত নন। ইতিমধ্যেই তিনি জ্বর-কাশি থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাক্তার মোঃ জাহিদ হাসান সিদ্দিক বলেন, ঐ বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের ল্যাবে তাঁর নমুনা পরিক্ষার ফল থেকে আমরা জেনেছি যে ওই বৃদ্ধ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নন। তাঁর কোনো স্বজনের সন্ধান না পাওয়ার কারণে আমরা তাঁকে ছেড়ে দিতে পারিনি। তাঁকে পাবনা মাসসিক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। কিছুদিন সেখানে থাকলে সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে বলে তিনি মনে করেন।

বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসিফ আনাম সিদ্দিকী বলেন, ঐ বৃদ্ধ মারাত্মক অমানবিক আচরণের শিকার হয়েছিলেন। তাঁকে উদ্ধার করে আনার পর থেকেই আমরা তাঁর প্রতি যত্নবান ছিলাম। তাঁকে পুনর্বাসনের জন্য বিভিন্ন বিকল্প বিষয় নিয়ে ভাবছিলাম। তবে পাবনা মানসিক হাসপাতালে তাঁকে ভর্তির বিষয়েই আমাদের আগ্রহ ছিল বেশি। শেষ পর্যন্ত তাঁকে সেখানে ভর্তির সুযোগ পাওয়ায় ভালো লাগছে। তবে পরর্বতীতে যদি কেউ উনার পরিচয় নিয়ে আসে তবে মানসিক হাসপাতাল থেকে নিয়ে যেতে পারবে।

উল্লেখ্য, গত ২০ এপ্রিল থোঁজখবর ডটনেটে ‘দূর্গম চরে ফেলে যাওয়া বৃদ্ধকে হাসপাতালে ভর্তি করলেন ইউএনও’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh