মাইডাস মেলায় সফলতার গল্প শোনালেন নারী উদ্যোক্তরা

শনিবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২০ | ৭:২১ অপরাহ্ণ | 244 বার

মাইডাস মেলায় সফলতার গল্প শোনালেন নারী উদ্যোক্তরা

পাট পন্য নিয়ে কাজ করেন রাজশাহীর উম্মে হাজ সিদ্দিকা (৫০)। পাট দিয়ে তৈরি করেন নানা ধরণের ব্যাগ, গহনা ও ঘর সাঁজানোর পন্য। শুরুটা হয়েছিল ২০০৭ সালে। তখন পূজি বলতে ছিল পাট পন্য তৈরির উপর নিজের প্রশিক্ষণ ও পাঁচ হাজার টাকা। এ দিয়েই চেষ্টা করেছেন। পাট দিয়ে নান্দনিকসব পন্য তৈরি করে নজর কেড়েছেন ক্রেতাদের। এখন তিনি সফল উদ্যোক্তা। নিজে পন্য তৈরির পাশাপাশি প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন অন্যদের। যুব উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে পেয়েছেন সেরা উদ্যোক্তার সম্মান।

এ রকম পাবনার মেয়ে অনুজা সাহা। বয়স ত্রিশ বছর। একসময় বেকার গৃহিনী ছিলেন। তবে ভালো পিঠা তৈরি করতেন। ২০১৩ সালে সে বিদ্যা কাজে লাগিয়েই পিঠা তৈরি ও বিক্রি শুরু করেন। পুঁজি বলতে কিছুই ছিলনা তাঁর। প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও দৃঢ় মনোবলে এখন তিনি সফল উদ্যোক্তা। পিঠার পাশাপাশি তৈরি করছেন মুখরোচক নানা খাদ্যপন্য। সরবরাহ করছেন বিভিন্ন অনুষ্ঠান, দোকানে। কর্মসংস্থান তৈরি করেছেন প্রায় ২০০ নারীর। পেয়েছেন জয়িতার সম্মান।

উদ্যোমী এই দুই নারী পাবনায় চলমান মাইক্রো ইন্ডাস্ট্রিজ ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিষ্ট্যন্স এন্ড সার্ভিসেস (মাইডাস) নারী উদ্যোক্তা মেলায় ষ্টল দিয়েছেন। তবে শুধু তাঁরাই নন, মাইডাস আয়োজিত এ মেলায় এমন ৪১ জন নারীর ষ্টল রয়েছে। প্রতিজন নারীর সফল হবার পেছনে রয়েছে একেকটি গল্প। গতকাল শনিবার মেলার সমাপনি দিনে এ সব গল্প শোনান তাঁরা।

অনুজা সাহ বলেন,‘উদ্যোক্তা হতে নারী কোন বাঁধা নয়। নিষ্ঠা, সততা ও ইচ্ছা শক্তিই প্রধান। এই তিনে মিলে কাজ করেছি। সফলতার দেখা মিলেছে।’

একই ভাষ্য ছিল রাজশাহী থেকে আসা বিহঙ্গ ফ্যাসন হাউজ ও গোধুলি বুটিক্সের প্রতিষ্ঠাতা মৌসুমি আক্তারের। তিনি এক সময় সরকারি চাকুরি করতেন। ২০০৫ সালে চাকুরি ছেড়ে উদ্যোক্তা হবার স্বপ্ন বোনেন। পূজি ছিল পাঁচ হাজার টাকা। এ পূজিতেই ১০ জন নারীকে নিয়ে কাজ শুরু করেন। বর্তমানে তিনি তিনটি ফ্যাসন হাউজের মালিক। নিজের তৈরি পোশাক সরবরাহ করছেন দেশে বিদেশে। কর্মসংস্থান তৈরি করেছেন ৩৫০ জন নারীর।

বিজলী খাতুন বলেন, ‘আমি প্রতিবন্ধিদের জন্য স্টল দিয়েছি। আর স্টলে এসে মানুষজন প্রতিবন্ধিদের তৈরি নানা পন্য কিনছে। ব্যবসায় সফল হয়েছি।’

খুলনা থেকে মেলায় এসেছেন তারানা তাবাসসুম (৩০) পড়ালেখা করেছেন ফ্যাশন বিদ্যায়। এক সময় খ্যাতনামা ফ্যাসন হাউজি বিবি আনায় কাজ করতেন। এখন তিনি নিজেই উদ্যোক্তা। তৈরি করছেন নারীদের বিভিন্ন পোষাক ও গহনা। শুরুতে পূজি ছিল ৩০ হাজার টাকা। এখন প্রতিমাসে বিক্রি করছেন ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকার পন্য। কর্মসংস্থান তৈরি করেছেন ৪৫০ জন নারীর।

আইন বিষয়ে পড়েছেন ঢাকার রুবাইয়া নাহিদ (৩২)। তবে আইন পেশা তাঁকে টানেনি। স্বপ্ন ছিল উদ্যোক্তা হবার। সঙ্গে ছিল স্বামীর অনুপ্রেরণা। আড়াই বছর আগে নিজের ঘরে থাকা একটি সেলাই মেশিন দিয়ে কাজ শুরু করেছিলেন। এখন উদ্যোক্তা হিসাবে স্বাবলম্বী। প্রতিষ্ঠা করেছেন একটি ফ্যাসন হাউজ।

মাইডাসের মেলায় অংশ নেয়া প্রতিজন নারীর সফল হবার পেছনে রয়েছে এমন অনেক গল্প। মেলায় এসে অন্য নারী ও তরুণেরা পন্য কেনার পাশাপাশি শুনছেন এসব গল্প। ফিরছেন অনুপ্রেরণা নিয়ে। মেলা থেকেই অনেকে স্বপ্ন বুনছেন নিজে উদ্যোক্তা হবার।

এ প্রসঙ্গে মাইডাসের চেয়ারম্যান ও স্কয়ার গ্রুপের পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু বলেন, মাইডাস দীর্ঘ ৩৭ বছর নারীদের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় কাজ করছে। তাঁদের বিভিন্নভাবে প্রশিক্ষণ দিয়ে সাবলম্বী করছে। নারীরা তাঁদের প্রচেষ্টা দিয়ে সফল হচ্ছেন। এই মেলায় সেই সফলাতারই কিছু চিত্র তুলে ধরা হচ্ছে। এতে দেশের অন্য নারীরা অনুপ্রাণিত হবেন বলে আশা করছি।

শনিবার বিকেল ৪টায় ৫ দিনব্যাপী মাইডাস এসএমই ট্রেড ফেয়ার ২০২০ সমাপনি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। মাইডাস চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে তাদের সফলতার গল্প শোনেন এবং সনদপত্র বিতরণ করেন ।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পাবনা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক এম সাইদুল হক চুন্নু, পাবনা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার হাবিবুর রহমান হাবিব, পাবনা চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাষ্টিজের সভাপতি সাইফুল আলম স্বপন চৌধুরী, চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি ও জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলী মূর্তজা সনি বিশ্বাস, পাবনার অন্নদা গোবিন্দা পাবলিক লাইব্রেরীর মহাসচিব আব্দুল মতীন খান, পাবনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আখিনুর ইসলাম রেমন, পাবনা প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক এবিএম ফজলুর রহমান, প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক উৎপল মির্জা, পাবনা সংবাদপত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শহীদুর রহমান শহীদ, সময় টিভি ও দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের সাংবাদিক সৈকত আফরোজ আসাদ, এটিএন নিউজ ও দেশ রূপান্তর প্রতিনিধি রিজভী জয়, জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শিবলী সাদিক, শেখ রনি, ফাহিমুল কবির খান শান্ত প্রমুখ।

এবারের এ মেলায় ঢাকা, পাবনা, রাজশাহী, খুলনা,যশোর,বগুড়া সহ দেশের বিভিন্ন জেলার ৪১টি স্টল অংশগ্রহন করে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টঃ WebNewsDesign