বাবা : মাথার ওপর ছায়া

শনিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১১:৪০ অপরাহ্ণ | 826 বার

বাবা : মাথার ওপর ছায়া
Advertisements

হুমায়ূন আহমেদ-এর ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকের কেন্দ্রিয় চরিত্র মোনা’র একটা ডায়ালগ ছিলো- “পৃথিবীতে অনেক খারাপ মানুষ আছে, কিন্তু একটাও খারাপ বাবা নেই”

অনেকেই হয়তো এ বিষয়ে দ্বিমত করবেন যে, বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নাটক ‘কোথাও কেউ নেই’ এর কেন্দ্রিয় চরিত্র মোনা নয় বরং বাকের ভাই।

সম্ভবত, এটা বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভুল। কোথাও কেউ নেই নাটকের কেন্দ্রিয় চরিত্র মোনা, নাটকের শেষে চারপাশে কোথাও কেউ না থাকা একাকিত্বটাও মোনার।

বাকের ভাই চরিত্রটি পুরুষ, পাগলাটে এবং মৃত্যুর মাধ্যমে ইমোশন তৈরীর জনপ্রিয়তাতে যে আলো কেড়েছে, তাতে সকলে একে কেন্দ্রিয় চরিত্র ভাবার ভুলটা করেন।

তবে এ নিয়ে দ্বিমতের জায়গা থাকলেও এ নিয়ে দ্বিমত নেই যে, পৃথিবীতে একটাও খারাপ বাবা নেই এবং এ পৃথিবীতে কোথাও যখন কেউ থাকে না, তখন একজন মানুষ মাথার ওপর ছায়া হয়ে থাকেন, সেটা ‘বাবা’।

তেমনই এক বাবাকে আমরা দেখলাম, পাবনার চাটমোহরে। ছেলের দুটি কিডনীই নষ্ট, চিকিৎসায় খরচ করে ফেলেছেন সহায় সম্বল সর্বস্য। ছেলে ধিরে ধিরে এগিয়ে চলছে মৃত্যুর দিকে, বাবা কি করে সইবেন এ কষ্ট? তখনই নিলেন কঠিন এক সিদ্ধান্ত- ছেলেকে সুস্থ্য করতে দেবেন নিজের কিডনী।

খোঁজখবর ডটনেট খুঁজে পেয়েছে সেই বাবাকে। পাঠকের সামনে তুলে ধরেছে বিস্তারিত সংবাদ। যা নাড়া দিয়েছে সবাইকে।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর ঢাকার মিরপুর কিডনী ফাউন্ডেশনে ডা. হারুন আর রশিদের তত্বাবধানে ৬০ বছর বয়সি পিতা মোশাররফ হোসেনের কিডনী প্রতিস্থাপন করা হয় সন্তান আল ইমরানের দেহে।

কিডনীর কথা যখন আসলো, তখন এ কিডনী প্রতিস্থাপনের একদিন আগের একটা কথা বলি- ২৫ সেপ্টেম্বর চাটমোহরের বালুরদিয়ার গ্রামে স্তন ক্যান্সারে মারা যান সেলিনা পারভিন। স্তন ক্যন্সারের যন্ত্রনায় সারারাত ঘুমাতে পারতো না সে। মায়ের মৃত্যু যন্ত্রনা দেখে অসহায় ছেলে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো নিজের কিডনী বেচে মায়ের চিকিৎসা করাবে।

এ সিদ্ধান্তে বাধা হয়ে দাড়ায় তার মৃত্যু পথযাত্রী মা! তিনি তো মা, নিজ সন্তানকে শারিরিক ভাবে দূর্বল করে তিনি কিভাবে বেঁচে থাকবেন?

তাই নিজের ছেলেকে সুস্থ্য রেখেই মারা গেলেন মা।

আশ্চর্য এ পৃথিবী! তার চেয়েও আশ্চর্য এ পৃথিবীতে বাবা-মা এর ভালোবাসা!

নিজের ছেলের কিডনীর বিনিময়ে বাঁচতে চান না মা। আবার নিজের ছেলেকে বাঁচানোর জন্য নিজের কিডনী দিয়ে দেন বাবা।
বাবা-মা থাকার পরও যে সকল সন্তানেরা জীবন নিয়ে হতাশায় ভোগেন, এ দুটি ঘটনা তাদের জন্য শিক্ষা।

জীবনে যখন কোথাও কেউ থাকে না, মা তখন পায়ের নিচে মাটি হয়ে থাকেন। বাবা তখন মাথার ওপর ছায়া হয়ে থাকেন।

লেখক : নির্বাহী সম্পাদক, খোঁজখবর ডটনেট ও চেয়ারম্যান, চেতনায় চাটমোহর।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh