ফরিদপুরের শিশু সুমনা হত্যার রহস্য উদঘাটন

শুক্রবার, ২০ মার্চ ২০২০ | ৬:৫৫ অপরাহ্ণ | 161 বার

ফরিদপুরের শিশু সুমনা হত্যার রহস্য উদঘাটন
প্রতিকী ছবি
Advertisements

গত ১৪ মার্চ শনিবার বিকেলে ১৩ বছরের শিশু শিহাব (ছদ্মনাম) তার চার বছরের ছোট ভাই শাকিল (ছদ্মনাম) কে নিয়ে খেলছিল। এ সময় তাদের সাথে খেলায় যোগ দেয় প্রতিবেশি চার বছরের অপর শিশুকন্যা সুমনা। এক পর্যায়ে শিহাবের ছোট ভাই শাকিলকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় সুমনা। এতে বড় ভাই শিহাব ক্ষিপ্ত হয়ে সুমনার গলা টিপে ধরলে সে মারা যায়।

পরে সে মৃত সুমনার লাশ পরিত্যক্ত বাড়ির একটি ঘরের মধ্যে রেখে দেয়। লাশ পঁচে গন্ধ বের হলে বস্তাবন্দী করে বাইরে ফেলে দেওয়ার বুদ্ধিও আঁটে শিহাব। তবে লোকজনের আনাগোনায় লাশটি সে বাইরে ফেলতে পারেনি। ফলে ওই বাড়ির বারান্দাতেই লাশটি থেকে যায়।

এর মধ্যে নিখোঁজের তিনদিন পর ১৭ মার্চ সকালে নির্মাণাধীন বাড়ি থেকে সুমনার অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার পর আটক ১৩ বছরের শিশু শিহাবের (ছদ্মনাম) জবানবন্দিতে উঠে আসে সুমনা হত্যার রহস্য।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ফরিদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জালাল উদ্দিন আটক শিশুর জবানবন্দির বরাত দিয়ে এসব তথ্য জানান।

শিশু সুমনা পাবনার ফরিদপুর উপজেলার সোনাহারা গ্রামের সজীব হোসেনের মেয়ে। আটক ১৩ বছরের শিশুটির বাড়িও একই গ্রামে।

এ বিষয়ে ফরিদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জালাল উদ্দিন বলেন, গত ১৪ মার্চ বিকেলে শিশু সুমনা নিখোঁজ হয়। খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে পরদিন ১৫ মার্চ সুমনার বাবা সজীব হোসেন থানায় সাধারণ ডায়েরী করেন। এর মধ্যে গত ১৭ মার্চ সকালে গ্রামে নির্মাণাধীন একটি বাড়ির বারান্দায় শিশু সুমনার লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে। পরে ১৮ মার্চ সেই বাড়ির দেখভাল করা দম্পতিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে ওই দম্পতি পুলিশকে জানান, ওই বাড়ির একটি চাবি তাদের ছেলের কাছে থাকে। সে মাঝে মধ্যে ওই বাড়িতে গিয়ে খেলাধুলা করে। তখন ১৩ বছর বয়সী ছেলেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে সুমনাকে হত্যার কথা স্বীকার করে। পরে বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সন্ধ্যায় তাকে আদালতে হাজির করা হলে বিচারকের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেয়। পরে শিশুটিকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

ফরিদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবুল কাশেম আজাদ বলেন, এ ঘটনায় শিশু সুমনার বাবা সজীব হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন। শিশুটি হত্যার দায় স্বীকার করায় সে এখন এই মামলার আসামি। তার মা-বাবাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh