পাবনায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে ১৭১ : হাসপাতালে ভর্তি ৫৯

মঙ্গলবার, ০৯ জুলাই ২০১৯ | ১০:২৪ অপরাহ্ণ | 310 বার

পাবনায় ডায়রিয়ায় আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে ১৭১ : হাসপাতালে ভর্তি ৫৯

পাবনা সদর উপজেলার দোগাছী ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামে ডায়রিয়া আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে ১৭১ জনে উন্নীত হয়েছে। এদের মধ্যে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ৫৯ জনকে। হঠাৎ করে এতো বেশী সংখ্যক মানুষের ডায়রিয়ায় আক্রান্তের কারণ নিশ্চিত করে বলতে পারেননি জেলার স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে বলে দাবি তাদের।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগ থেকে জানা গেছে, শনিবার (৬ জুলাই) মধ্যরাত থেকে বলরামপুর এলাকার নারী, পুরুষ ও শিশু মিলিয়ে বেশ কিছু রোগী হাসপাতালে ভর্তির জন্য আসেন। তারা সকলেই ডায়রিয়া ও এর সাথে জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। এর পরদিন রবিবার সকাল থেকে ঐ এলাকার আরো বহু মানুষ প্রায় একই সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। একই এলাকার এতো বেশী সংখ্যক মানুষ হঠাৎ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত্রের ঘটনায় জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ নড়েচড়ে বসে।

কারণ অনুসন্ধানের জন্য ঢাকা থেকে জাতীয় রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আই ই ডি সি আর) ৫ সদস্যের তদন্ত দল সোমবার (০৮ জুলাই) পাবনায় এসে কাজ শুরু করেন। আই ই ডি সি আর অনুসন্ধান দলের প্রধান ডাঃ ফেরদৌস রহমানের কাছে অনুসন্ধানের ফলাফল জানতে চাইলে তিনি বলেন, তারা (আই ই ডি সি আর প্রতিনিধিরা) তাদের অনুসন্ধানের সবকিছু সিভিল সার্জনকে দেবেন। তিনিই গণমাধ্যমকে সবকিছু অবহিত করবেন।

মঙ্গলবার দুপুরে পাবনার সিভিল সার্জন ডাঃ মেহেদী ইকবালের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, আক্রান্ত্র রোগীদের মল, রক্ত সহ অন্যান্য পরীক্ষার ফলাফল তার হাতে আসেনি। রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে। তবে ঘটনার একদিন আগে (শুক্রবার ৫ জুলাই) বলরামপুর গ্রামের একটি মিলাদের তাবারক হিসাবে পাওয়া খিচুরী খাবার পর থেকে গ্রামের অধিকাংশ মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ মনে করছে বলে তিনি জানান। সিভিল সার্জন আরো জানান, ঐ খিচুরীর নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সোমবার দুপুর পর্যন্ত বলরামপুর গ্রামের ১৫৮ ব্যক্তি ডায়রিয়ায় আক্রান্ত ছিলো। মঙ্গলবার দুপুরে আলাপকালে সিভিল সার্জন জানান, এ সময় পর্যন্ত বলরামপুরের আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৭১ জনে উন্নীত হয়েছে। এদের মধ্যে ৫৯ জন পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

বলরামপুর ডায়রিয়া পরিস্থিতি সম্পর্কে আলাপকালে সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী ইকবাল মঙ্গলবার দুপুরে জানান, পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রনে চলে এসেছে। ভর্তি হওয়া রোগীরা পুরোপুরি শংকামুক্ত রয়েছেন। এলাকার অস্থায়ী মেডিকেল ক্যাম্পে এদিন সকাল থেকেও বেশ কিছু রোগী এসেছিল। স্থানীয়ভাবে তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি অধিকতর অসুস্থ্যদের দ্রæত হাসপাতালে স্থানান্তরের জন্য ঐ এলাকায় স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে সার্বক্ষনিক একটি এ্যাম্বুলেন্স রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত গত চারদিনে বলরামপুর গ্রামে ডায়রিয়া অনেকটাই মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। আক্রান্তদের অধিকাংশই জানিয়েছেন মিলাদের খিচুরী খাবার পর থেকে তারা অসুস্থ্য হয়ে পড়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সুমাইয়া আক্তার সুখী (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। সুখীর বড় বোন বিথী খাতুনকে আশংকাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টঃ WebNewsDesign