পাবনার চাঞ্চল্যকর ৩ পুলিশ হত্যা মামলায় ৮ জনের যাবজ্জীবন

বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯ | ১০:০২ অপরাহ্ণ | 722 বার

পাবনার চাঞ্চল্যকর ৩ পুলিশ হত্যা মামলায় ৮ জনের যাবজ্জীবন
প্রতিকী ছবি
Advertisements

পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালারচরে চাঞ্চল্যকর তিন পুলিশ হত্যা মামলায় ৮ চরমপন্থীর যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিন আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) দুপুরে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের বিচারক অনুপ কুমার জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন।

রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক জানান, মামলায় মোট ১৬ জন আসামি ছিলেন। এর মধ্যে আটজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিন আসামিকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। বাকিরা বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছেন।

এন্তাজুল হক আরও জানান, দন্ডপ্রাপ্ত ৮ আসামিকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে। অনাদায়ে তাঁদের আরও এক বছরের সশ্রম কারাদন্ড ভোগ করতে হবে।

দন্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন, পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালাচর গ্রামের জহুরুল ইসলাম, রাজধরদিয়া গ্রামের নিজাম ফকির, ধারাই গ্রামের রফিক ওরফে জৈটা রফিক, পশ্চিম কাছাদিয়া গ্রামের আইয়ুব আলী ও শুকুর আলী সরদার, আটঘরিয়া উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের হাশেম ওরফে খোকন ওরফে বাচ্চু, সুজানগর উপজেলার পুকুড়দিয়া গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম ওরফে কানা আলম এবং রাজবাড়ীর মাইছেঘাটার জোসন মোল্লা। এঁদের মধ্যে জহুরুল ও হাশেম পলাতক।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালের ২০ জুলাই রাতে পাবনার বেড়া উপজেলার প্রত্যন্ত ঢালারচর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক কফিল উদ্দিন (৫০), নায়েক ওয়াহেদ আলী (৩৫) ও কনস্টেবল শফিকুল ইসলামকে (৩৫) গুলি করে হত্যা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থীরা।

ওই ঘটনায় বেঁচে যাওয়া কনস্টেবল রাশেদুল ইসলাম বাদী হয়ে পরদিন অজ্ঞাতনামা ২৫/৩০ জন সন্ত্রাসীকে আসামি করে বেড়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে ২০১১ সালের ৩১ অক্টোবর পাবনার আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়। মামলাটি পরে দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ২০১৬ সালে রাজশাহী দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। দীর্ঘ ৯ বছর পর সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে এ রায় ঘোষণা করা হলো।

রায় ঘোষণার পর আদালতে উপস্থিত ছয় আসামিকে রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। আসামিদের পক্ষে আবু বাকার ও রইসুল ইসলাম মামলাটি পরিচালনা করেন।

আইনজীবী আবু বাকার বলেন, তাঁরা উচ্চ আদালতে আপিল করবেন। তবে রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh