মনোনয়ন প্রত্যাশীদের চোখ কেন্দ্রের দিকে

নির্বাচনকে ঘিরে নাটোরে এখন সাজ সাজ রব

মঙ্গলবার, ০২ অক্টোবর ২০১৮ | ১০:৫৪ অপরাহ্ণ | 511 বার

নির্বাচনকে ঘিরে নাটোরে এখন সাজ সাজ রব
Advertisements

নির্বাচনকে ঘিরে সবখানেই এখন সাজ সাজ রব। মনোনয়নকে কেন্দ্র করে গণসংযোগের পাশাপাশি নেতাদের চোখ কেন্দ্রের দিকে। মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন কিছু তরুণ নেতাও। প্রাথীদের মুখে রয়েছে প্রতিশ্রুতি অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগ। আর বর্তমান সংসদ সদস্যদের মুখে রয়েছে উন্নয়নের ফিরিস্তি।

তবে বিএনপি সহ অন্যান্য দলের অভিযোগ কর্মসূচী পালনে দেয়া হচ্ছে বাঁধা। সব বাধা পেরিয়ে অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের প্রত্যাশা সাধারণ ভোটার ও সচেতন সমাজের।

কখনও মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা, গণ সংযোগ, কখনও বড় বড় সমাবেশের মাধ্যমে নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। ভোটারদের কাছে তুলে ধরছেন বর্তমান সরকারের সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড। মাঠে নেমেছেন কয়েকজন তরুণ নেতাও। বিভিন্ন প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে নতুন ভোটারদেরে মন জয় করার চেষ্টা করছেন তারা।পাশাপাশি চলছে কেন্দ্রে দৌঁড়ঝাপ।

নাটোরের গুরুদাসপুর, বড়াইগ্রাম ও বনপাড়া উপজেলা নিয়ে নাটোর-৪ আসন। এই আসন ঘুরে দেখা গেছে নাটোর-৪ আসনে মেয়র শাহনেওয়াজের পক্ষে ইউপি-পৌর নেতারা কাজ করছেন। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গুরুদাসপুর উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মো. শাহনেওয়াজ আলীকে নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনে মনোনয়ন প্রদানের জন্য দলের হাইকমান্ডের কাছে আবেদন জানিয়েছেন উপজেলায় দলের অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

তাদের মতে, পৌর মেয়র হিসেবে ইতোমধ্যে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জন করেছেন শাহনেওয়াজ আলী। তিনি মনোনয়ন পেলে, পুনরায় এ আসনটিতে আওয়ামী লীগ জয়লাভ করবে।

শাহনেওয়াজ আলীর পক্ষে অবস্থান নেয়া এসব তৃণমূল নেতাদের মধ্যে রয়েছেন গুরুদাসপুর উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও পৌর কমিটির ওয়ার্ড পর্যায়ের সভাপতি-সম্পাদকগণ।

সম্প্রতি গুরুদাসপুর উপজেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল বারীর দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কর্মী সমাবেশে মনোনয়ন প্রদানের এই দাবী জানানো হয়।

সমাবেশে উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায়ের সভাপতি মো. আইয়ুব আলী, রবিউল করিম বাবু, শরিফুল ইসলাম, আব্দুল বারী, প্রভাষক জামাল উদ্দিন, হাসমত আলী সহ সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

এসময় বক্তারা বর্তমান সাংসদ আব্দুল কুদ্দুসের বিরুদ্ধে অনিয়ম, স্বজনপ্রীতি ও নেতাকর্মিদের অবমূল্যায়ন করার চিত্র তুলে ধরেন। এছাড়া সাংসদ কুদ্দুসের বিরুদ্ধে বিগত ইউপি ও উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত প্রার্থীদের সমর্থনসহ দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গেরও অভিযোগ করেন বক্তারা।

এদিকে জেলায় রয়েছে ৮ টি উপজেলা; ৪ টি সংসদীয় আসন। ভোটার সংখ্যা প্রায় ১৪ লাখ। ১০ বছর ধরে সবকটি আসনে ক্ষমতায় আওয়ামী লীগ। এদিকে নেতা-কর্মী সমর্থকরা করছেন একে অপরের প্রতি অভিযোগ আর পাল্টা অভিযোগ তারা চান নতুন নেতৃত্ত্ব। তবে বর্তমান সংসদ সদস্যদের মুখে রয়েছে উন্নয়নের ফিরিস্তি।

তবে সেভাবে মাঠে দেখা যাচ্ছেনা বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীদের। ঘরোয়া কর্মসূচীর মধ্যে সীমাবদ্ধ তারা। বিএনপি নেতাদের দাবি সরকার জুলুম নির্যাতননের কারণে আওয়ামী লীগ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে জনগন। সবগুলো আসনে জয়ের আশা নিয়ে নির্বাচন ও আন্দোলনের প্রস্তুতি একসাথে নিচ্ছেন বলেও জানান তারা। সরকারে বর্তমান উন্নয়ন কর্মাকন্ড বিচার করে জনগন আবারও নৌকায় ভোট দেবে বলে আশাবাদ আওয়ামী লীগ নেতাদের।

সকল দলের অংশ গ্রহণে একটি প্রতিযোগীতামূলক নির্বাচনের চান সাধারণ ভোটাররা। চান নিজেদের ভোটা প্রদানের নিশ্চয়তা। আর তরুণ ভোটাররা বলছে, ভোটের আগে নানা প্রতিশ্রুতির মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে প্রার্থীরা। যারা সব সময় জনগনের পাশে থাকবে দলীয়ভাবে এমন প্রার্থী বাছাইয়ের দাবি তাদের। একই দাবি সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের।

৪টি আসনের বিপরীতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের অন্তত ৩০ জন সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। তাদের দৌড়-ঝাঁপে সরব হয়ে উঠেছে উত্তরের এই জনপদ।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh