নির্বাচন ৭ সেপ্টেম্বর

চাটমোহর ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে ৮ পদে লড়ছেন ২১ জন

বুধবার, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১২:২৬ পূর্বাহ্ণ | 881 বার

চাটমোহর ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনে ৮ পদে লড়ছেন ২১ জন
বাঁ থেকে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সহ সাধারণ সম্পাদক।

আগামী ৭ সেপ্টেম্বর চাটমোহর ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে চলছে উৎসবের আমেজ। পুরো পৌর শহর জুড়ে চলছে নির্বাচনী উত্তাপ। প্রতিটি এলাকার মোড়ে মোড়ে ব্যানার ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে চারিদিকে। মনে হয় যেন সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি!

প্রতিটি পদেই একাধিক প্রার্থীরা তাদের পোস্টার লাগানোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন। হাতে হাতে বিতরণ করা হচ্ছে লিফলেট। তবে শ্রম অধিদপ্তর কর্তৃক নিবন্ধিত চাটমোহর ব্যবসায়ী সমিতির এমন অলাভজনক পদে হাজার হাজার টাকা খরচ করে নির্বাচন করা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাধারণ ব্যবসায়ী ও এলাকার সচেতন মানুষ।

তাদের মতে, সমিতির সভাপতি থেকে শুরু করে কার্যকরী কমিটির সদ্য পর্যন্ত কেউ কখনও সম্মানী ভাতা বা বেতন পান না। তবে কেন এতো টাকা খরচ করে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা-এমনই সমালোচনায় ব্যবসায়ীরা।

নির্বাচন কমিশন সুত্রে জানা গেছে, গত ২৫ ও ২৬ আগস্ট মনোনয়নপত্র সংগ্রহের দুইদিনে মোট ৩২ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।  ২৭ আগস্ট জমা দেয়ার পর মনোনয়নপত্র বাছাই করা হয় ২৮ আগস্ট। ২৯ আগস্ট ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এর মধ্যে দুইজন তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। আর বাকিরা (৯) জন তাদের মনোনয়নপত্র জমাই দেননি। ৩০ আগস্ট দেয়া হয় প্রতিক বরাদ্দ।

আর প্রতিক বরাদ্দ পাওয়ার পর থেকে ঘুম নেই প্রার্থীদের চোখে। তারা দিনরাত এক করে চালাচ্ছেন প্রচারণা। প্রার্থী সামলাতে ভোটারদের অবস্থাও কাহিল বলে জানান একাধিক ভোটার। প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন প্রার্থী, তাদের স্ত্রী ও স্বজনরা।

Chatmohor Poster

এদিকে, সমিতির ১১টি পদের মধ্যে ৩টি পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন তিনজন। বাকি ৮টি পদের নির্বাচনে লড়ছেন ২১ জন।

সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৩ জন। তারা হলেন, বর্তমান সভাপতি বেলাল হোসেন স্বপন (চেয়ার), সাবেক সভাপতি সাইদুল হক কিসলু (ছাতা) ও হাজী মোজাম্মেল হক (আনারস)।

সহ-সভাপতি পদে লড়ছেন ২ জন। তারা হলেন- বর্তমান সহ সভাপতি শেখ মো: জিয়ারুল হক সিন্টু (কাপ-পিরিচ) ও রেজাউল হক রেজা (হরিণ)।

সাধারন সম্পাদক প্রার্থী ৩ জন হলেন-আব্দুল মোত্তালিব (বাইসাইকেল), জহুরুল ইসলাম  (মোরগ) ও বিশ্বজিত জোয়ার্দ্দার মিঠুন (মাছ)।

সহ সাধারন সম্পাদক পদের প্রার্থী ৩ জন। তারা হলেন- বকুল হোসেন (কাঁঠাল), সাহাবুল আলম শাপলা (মোমবাতি) ও সাইফুল ইসলাম (মই)।

কোষাধ্যক্ষ পদের ৩ প্রার্থী হলেন-ইউনুস আলি (কবুতর), শেখ সালাউদ্দিন ফিরোজ (গোলাপ ফুল) ও তরুন পাল (ফুটবল)।

প্রচার সম্পাদক পদের ২ জন হলেন-নজরুল ইসলাম (কলস) ও হাবিব খাঁন (মোবাইল ফোন)।

বাণিজ্যিক সম্পাদক পদে ২ প্রার্থী নুরুল ইসলাম (হাত পাখা) ও নিজাম উদ্দিন (আম)।

কার্যনির্বাহী সদস্য পদে লড়ছেন ৩ জন। তারা হলেন-সাইফুল ইসলাম (জগ), আনোয়ার হোসেন (চশমা) ও তাইজুল ইসলাম খাঁ (ফ্যান)।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতরা হলেন-সাংগঠনিক সম্পাদক পদে এনামুল হক, দপ্তর সম্পাদক পদে নুর মোহাম্মদ রান্টু এবং সমাজ কল্যাণ সম্পাদক পদে রবিউল ইসলাম।

hg

সমিতির ১ হাজার ২৮ জন ভোটার তাদের নের্তৃত্ব নির্বাচন করবেন প্রত্যক্ষ ভোটদানের মাধ্যমে। সবার নজর সভাপতি পদের দিকে। বর্তমান সভাপতিই তার পদে বহাল থাকবেন নাকি আসবে নতুন নেতৃত্ব।

চাটমোহর পৌর সদর সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, পলিথিন দিয়ে মোড়ানো পোস্টারগুলো শহরের যত্রতত্র লাগানো হচ্ছে। বাড়ির ছাদ থেকে শুরু করে গাছের ডালে শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন প্রার্থীর প্রতিক সম্বলিত পোস্টার। সর্বত্র এখন পোস্টারে পোস্টারে সয়লাব। দোকানে দোকানে গিয়ে কুশল বিনিময় করছেন প্রার্থীরা। সকাল থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত প্রার্থীদের স্বজনরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন।

এদিকে একাধিক সূত্র জানিয়েছে, বেশ কয়েকজন প্রার্থী রাত হলেই বিভিন্ন হোটেলে ভোটারদের খিচুরী-মাংস দিয়ে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করেছেন। চলছে প্যাকেট প্যাকেট সিগারেট প্রদান। আর যারা সিগারেট খাওয়ার অভ্যাস নেই তাদের জন্য রয়েছে কোমল পানীয়ের ব্যবস্থা।

ক্ষোভ প্রকাশ করে কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, ‘বেশিরভাগ প্রার্থীর পোস্টার, লিফলেট বানানো এবং আপ্যায়ন বাবদ অনেক টাকা খরচ করছে। কিন্তু যেখানে কোন সম্মানী ভাতা বা বেতন নেই সেখানে কিসের মোহে এতো টাকা খরচ করছেন তারা? এই টাকাগুলো কোন গরীব মানুষের পেছনে ব্যায় করলে তারা একটু ভাল থাকতো।’

শাহী মসজিদ এলাকার ব্রাইট সোলার এর মালিক আবদুল আলীম বলেন, বিগত দিনে অডিটের পর নির্বাচন হয়েছে। কিন্তু থলের বেড়াল বের হওয়ার ভয়ে কোন অডিট না করেই নির্বাচন করছে চলমান কমিটি। যা ব্যবসায়ীদের সাথে প্রতারণার সামিল।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ব্যবসায়ী সমিতির প্রধান নির্বাচন কমিশনার সন্দীপ কুমার কর্মকার বলেন, ‘পোস্টারতো কিছু ঝোলাতে হবেই। তাছাড়া ভোটাররা জানবে কি করে, কার কোন প্রতীক। অডিট করা আমাদের কাজ না। আর খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপারে কিছু জানিনা, কেননা আমাদের দায়িত্ব নির্বাচন করা।’

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টঃ WebNewsDesign