চাটমোহর প্রেসক্লাব নিয়ে প্রতারণা না করতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশ

সোমবার, ২৭ মে ২০১৯ | ১২:০২ অপরাহ্ণ | 813 বার

চাটমোহর প্রেসক্লাব নিয়ে প্রতারণা না করতে জেলা প্রশাসকের নির্দেশ
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিদের্শনা
Advertisements

চাটমোহরের সংবাদকর্মীদের সেবামুলক সংগঠন ঐতিহ্যবাহী চাটমোহর প্রেসক্লাব নিয়ে কেউ যেন প্রতারণা না করতে নির্দেশনা দিয়েছেন পাবনার জেলা প্রশাসক।

সম্প্রতি চাটমোহর থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক আমাদের বড়াল ও সাপ্তাহিক চাটমোহর বার্তা’ পত্রিকায় প্রতারণামুলকভাবে ১৯৯০ সালে প্রতিষ্ঠিত মূলধারার সংগঠন ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ নাম পদ ও পদবী ব্যবহার করে বিভিন্ন সরকারী, বেসরকারী, শায়ত্বশাসিত, পেশাজীবি, সেবামূলক সংগঠন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফায়দা নেবার অভিপ্রায়ে হেলালুর রহমান জুয়েলকে সভাপতি ও জাহাঙ্গীর আলমকে সম্পাদক করে একটি তথাকথিত ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ এর কমিটি প্রকাশ করা হয়।

বিষয়টি মুলধারার সংগঠন ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ এর নজরে এলে প্রেসক্লাবের সভাপতি রকিবুর রহমান টুকুন ও সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত সাহা কিংশুক প্রেসক্লাবের সাধারণ সভার মাধ্যমে সকল সদস্য ওই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং সবাইকে প্রতারণামূলকভাবে গঠিত ওই কমিটির ব্যপারে বিভ্রান্ত না হয়ে সতর্ক থাকার আহবান জানানো হয়।

একই সাথে প্রতারণামূলকভাবে গঠিত চাটমোহর প্রেসক্লাব এর নাম ব্যবহার নিষিদ্ধকরণে পাবনার জেলা প্রশাসক বরাবর ওই ঘটনার বিবরন দিয়ে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য একটি আবেদন দেয়া হয়।

ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ২১ মে পাবনা জেলা প্রশাসকের ০৫.৪৩.৭৬০০.০৩৬.০১৬.১২৪.১৯.৭০৬ নম্বর স্বারকে উল্লেখ করা হয় ‘চাটমোহর প্রেসক্লাবের সদস্যদের মধ্যে মামলা চলমান। এমতাবস্থায় কেউ যেন প্রতারণা করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকার জন্য দির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে’।

ওই নির্দেশনার আলোকে চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকার অসীম কুমার ২৬ মে’ ১৯ তার দপ্তরের ০৫.৪৩.৭৬২২.০০০.১১.০০১.১৯-৬৭৫ স্বারকে ‘বর্ণিত অবস্থায় সংশ্লিষ্ট সকলকে উক্ত দিক নির্দেশনা প্রতিপালন করার জন্য অনুরোধ করা হলো’ মর্মে চাটমোহর প্রেসক্লাবের সভাপতি রকিবুর রহমান টুকুন, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত সাহা কিংশুককে পত্র প্রেরণ করেন। এছাড়া ওই নির্দেশনার কপি থানা অফিসার ইনচার্জ,চাটমোহরসহ কয়েকটি স্থানে প্রেরণ করেন।

প্রেসক্লাব সূত্র জানায়, ২৪/১২/২০১৫ তারিখে ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ এর দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বর্তমান কমিটি সদস্যদের প্রত্যক্ষ ভোটে জয়লাভ করে। পরাজিত সভাপতি প্রার্থী এসএম হাবিবুর রহমান, পরাজিত সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম, পরাজিত কার্যকরী সদস্য প্রার্থী মো. হেলালুর রহমান জুয়েল নির্বাচনে পরাজিত হন।

পরবর্তী সময়ে চাটমোহর প্রেসক্লাব এর একাধিক সভায় উপস্থিত হবার জন্য মো. হেলালুর রহমান জুয়েল, এসএম হাবিবুর রহমান, মো. জাহাঙ্গীর আলম, মহিদুল ইসলাম খাঁন ও এমএস আলম বাবলুকে বারং বার নোটিশ/ডাকযোগে রেজিষ্ট্রি চিঠি প্রদান করা হয়।

কিন্তু নামীক ব্যক্তিগণ চিঠি গ্রহন না করে এবং সভায় উপস্থিত না হয়ে ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ ও নির্বাচিত কমিটি এবং নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ও সদস্যদের বিরুদ্ধে এবং ব্যক্তি আক্রোশে স্থানীয় দৈনিক আমাদের বড়াল (হেলালুর রহমান জুয়েল সম্পাদিত), স্থানীয় অনিয়মিত ‘সাপ্তাহিক চাটমোহর বার্তা’ (এস এম হাবিবুর রহমান সম্পাদিত) অশ্লীল, কুরুচিপূর্ণ, আপত্তিকর. মানহনিকর. সাংঘর্ষিক শব্দ ব্যবহার করে নামে/ছদ্ম নামে একাধিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেন।

শুধু তাই নয় কুটকৌশলে সম্পূর্ণ অন্যায় অবৈধভাবে ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব পুনঃগঠন কমিটি’ নামে একটি তথাকথিত আহবায়ক কমিটি গঠন করেন। চাটমোহর প্রেসক্লাবের সভায় উপস্থিত না হওয়া এবং প্রেসক্লাবের নির্বাচিত কমিটি ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ও সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার, সংগঠন পরিপন্থি কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত এবং শৃংখলা ভঙ্গের ফলে প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী হেলালুর রহমান জুয়েল, এসএম হাবিবুর রহমান, এমএস আলম বাবলু, মহিদুল ইসলাম খানকে ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ এর সদস্য পদসহ সকল দায়িত্ব থেকে স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়।

ওই সময় থেকে যারা চাটমোহর প্রেসক্লাব এর নাম ব্যবহার করছে তাদের সাথে মূলধারার সংগঠন ‘চাটমোহর প্রেসক্লাব’ এর কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। তারা চাটমোহর প্রেসক্লাবের কেউ নন।

এমতাবস্থায় হেলালুর রহমান জুয়েল ও এসএম হাবিবুর রহমান কৌশলগত কারণে নিজেরা বাদী না হয়ে পরাজিত সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলমকে (তার ভাষ্য মতে) বাদী বানিয়ে চাটমোহর প্রেসক্লাব এর প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত সভাপতি রকিবুর রহমান টুকুন, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত সাহা কিংশুক ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক ডা. অঞ্জন ভট্টাচার্য্য, আহবায়ক কমিটির সদস্য বিপ্লব আচার্য্য ও অপর সদস্য মো. আফতাব হোসেন এর বিরুদ্ধে মোকাম চাটমোহর থানা সহকারী জজ আদালত, পাবনায় ০৮/০৩/২০১৬ ইং তারিখে একটি (নং ও/সি ৫৪/১৬) মামলা রুজু করেন। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।

তাই চাটমোহরের আপামর জনসাধারণকে চাটমোহর প্রেসক্লাব নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আহবান জানানো হয়েছে। সেইসাথে একই প্রেসক্লাবের নাম ভাঙ্গিয়ে কথিত কমিটি থেকে সতর্ক থাকতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh