আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

চাটমোহরে স্কুলে ২০টি মৌমাছির চাক!

সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯ | ১১:১৬ অপরাহ্ণ | 419 বার

চাটমোহরে স্কুলে ২০টি মৌমাছির চাক!
Advertisements

পাবনার চাটমোহরে উপজেলার জগতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বাসা বেঁধেছে মৌমাছির চাক। এতে করে আতঙ্কের মধ্যে ক্লাস করতে বাধ্য হচ্ছে তিন শতাধিক শিক্ষার্থী।

স্কুল ভবনের চারিদিকে প্রায় ২০টি বড় বড় মৌমাছি চাক বসলেও সেগুলো সরানোর উদ্যোগ নেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। মাঝে মধ্যেই মৌমাছির হুলে আহত হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে উদ্বেগ আর উৎকন্ঠায় দিন পার করছেন অভিভাবকরা।

সরেজমিনে স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, মৌমাছির ভোঁ ভোঁ শব্দে মুখরিত বিদ্যালয় প্রাঙ্গন। ভবনের সানসেট, জানালা ও দরজা মিলিয়ে প্রায় ২০টি’র মতো মৌমাছির চাক বসেছে। শ্রেণীকক্ষের মধ্যে উড়ছে মৌমাছি। তার মধ্যে বসেই পাঠগ্রহণ করছে শিক্ষার্থীরা।

অনেক সময় শিশু শিক্ষার্থীরা দুষ্টুমি করে ঢিল ছুঁড়লে ক্ষিপ্ত হয়ে অনেক-কেই হুল ফুটিয়ে দেয় মৌমাছি। এর আগে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী মৌমাছির কামড়ে আহত হয়েছে। তবে মৌমাছি চাক সরানোর ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা না গ্রহণ করায় অভিভাবকরা হতাশা প্রকাশ করেছেন।

বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, বাতাস উঠলে বা কেউ ঢিল ছুড়লে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে তারা। তখন খুব ভয় লাগে। এর আগে অনেকে মৌমাছির কামড় খেয়ে আহত হয়েছে। কয়েকজন অভিভাবক জানালেন, স্কুলে অসংখ্য মৌমাছি বাসা বেঁধেছে।

বেশ ভয়ে ভয়ে ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাই। সন্তানরা বাড়িতে না ফেরা পর্যন্ত সারাদিন আতঙ্কের মধ্যে থাকি। কখন যে কি হয়?

স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. হেলাল উদ্দিন জানান, মৌমাছির চাকগুলো নিয়ে বিপদে আছি। ভয় লাগে কখন কোন শিক্ষার্থীকে হুল ফুটিয়ে আহত করে। তবে শিক্ষা অফিসার স্যার স্কুল পরিদর্শনে এসে মৌমাছির চাকগুলো দেখে ব্যবস্থা নেবেন বলে বলেছেন।

এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আশরাফুল ইসলাম জানান, সম্প্রতি স্কুলটি পরিদর্শন করার সময় অনেকগুলো মৌমাছির চাক দেখেছি। চাকগুলো অপসারণের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh