চাটমোহরে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ল দু’টি মেছোবাঘ; আহত ৪

শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০ | ৩:৪৪ অপরাহ্ণ | 102 বার

চাটমোহরে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়ল দু’টি মেছোবাঘ; আহত ৪
Advertisements

পাবনার চাটমোহরে গ্রামবাসীর হাতে ধরা পড়েছে দু’টি মেছোবাঘ। তার মধ্যে পিটুনিতে মারা গেছে একটি। আরেকটি জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে বন বিভাগ। মেছোবাঘের আক্রমণে আহত হয়েছেন অন্তত চারজন। তাদের হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

শুক্রবার সকাল দশটার দিকে উপজেলার ডিবিগ্রাম ইউনিয়নের বামনগ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মেছো বাঘ ধরার খবর পেয়ে দেখতে ভীড় জমে উৎসুক মানুষের। খবর পেয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বন বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করে।

স্থানীয় বাসিন্দা ইমদাদুল হকসহ কয়েকজন জানান, এক সপ্তাহ ধরে বামনগ্রাম গোরস্তান এলাকায় দু’টি মেছোবাঘের দেখা মেলে। ইতিমধ্যে বেশকিছু মুরগী ও একটি ছাগল ধরে খেয়েছে মেছোবাঘ। এরপর থেকে ‘বাঘ’ আতংক ছড়িয়ে পড়ে গ্রামের মানুষের মাঝে। শুক্রবার সকালে মেছোবাঘ দেখা গেলে গ্রামবাসী একজোট হয়ে বামনগ্রাম গোরস্তান ঘিরে ফেলে। তারপর বিভিন্ন কৌশলে মেছোবাঘ দু’টিকে আটক করতে সক্ষম হয় এলাকাবাসী। এ সময় মেছোবাঘের আক্রমণে চারজন আহত হয়। পরে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর পিটুনিতে একটি মেছোবাঘ মারা যায়। মৃত ও জীবিত মেছোবাঘটিকে উদ্ধার করে ডিবিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের সামনে নিয়ে গেলে একনজর দেখতে ভীড় জমে উৎসুক জনতার।

ডিবিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নবীর উদ্দিন মোল্লা জানান, সকালে গ্রামবাসী মেছোবাঘ দেখে একজোট হয় ধরার জন্য। বিষয়টি জানার সাথে সাথে মেছোবাঘ না মেরে উদ্ধার করে পরিষদে নিয়ে আসতে বলি। একটি মেছোবাঘ আনার সময় মারা যায়। মেছোবাঘের আক্রমণে চারজন আহত হয়েছে।

আহতরা হলেন, বামনগ্রামের ইছা বিশ্বাসের ছেলে লিটন বিশ্বাস (৩৫), মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে এনামুল হক (২৩), ইসমাইল হোসেনের ছেলে মহিদুল ইসলাম (২৮) ও আফসার আলীর ছেলে আনিছ (৩০)। তাদের হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈকত ইসলাম জানান, সমাজসেবা অফিসে যোগাযোগ করে তাদের মাধ্যমে আহতদের ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে। আর মেছোবাঘকে পিটিয়ে মারা হলে আইনগত প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। এ নিয়ে বন বিভাগের সাথে কথা বলে দেখতে হবে।

সামাজিক বন বিভাগ পাবনার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান, পাবনার বন্য প্রানী বিষয়ক সংগঠন নেচার এ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনসারভেশন কমিউনিটির মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি জীবিত মেছোবাঘ উদ্ধার করেছি। অন্যটি মারা গেছে। উদ্ধার মেছোবাঘ কিছুটা আহত। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়ার পর সুন্দর পরিবেশ দেখে অবমুক্ত করা হবে।

পাবনার বন্য প্রানী বিষয়ক সংগঠন নেচার এ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনসারভেশন কমিউনিটির সভাপতি এহসান আলী বিশ্বাস লিঠু জানান, এটি মুলত বিপন্ন প্রজাতির মেছো বিড়াল বা বাঘরোল। কিন্তু অনেকেই এটিকে মেছো বাঘ বলে ডাকেন। এরা মানুষের কোন ক্ষতি করে না। ক্রমেই তাদের বসবাসের জায়গা কমে আসছে জন্য অনেক সময় লোকালয়ে তাদের দেখা যায়। পরিবেশে এদের রক্ষা করতে সচেতনতা বৃদ্ধি প্রয়োজন।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh