কে এই আসাদুজ্জামান ও নিবির ?

মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯ | ৫:৪২ অপরাহ্ণ | 1913 বার

কে এই আসাদুজ্জামান ও নিবির ?
আসাদুজ্জামান (বামে) ও নীরব (ডানে)
Advertisements

সোমবার রাতে চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে ভুয়া চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিক বাবলুর অবহেলায় তাছলিমা খাতুন নামের এক প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে। অপারেশন টেবিলে রোগী ফেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় ভুয়া চিকিৎসক ও ক্লিনিক মালিক পালিয়ে যাওয়ার সময় দুইজনকে আটক করে জনতা। তবে কৌশলে গা ঢাকা দেয় ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু।

ঘটনার পর সবার মুখে শুধু একটিই কথা, অপারেশন টেবিলে পেট কাটা অবস্থায় সিজারিয়ান রোগীকে মুমূর্ষূ রেখে পালিয়ে যেতে পারে যে বা যারা, তারা কি করে চিকিৎসক পরিচয় দেন? আর ক্লিনিক মালিকই বা কতটা হৃদয়হীন ও দায়িত্বজ্ঞানহীন যে তিনিও তার ক্লিনিকে একজন রোগীকে এভাবে ফেলে পালালেন। এখন পর্যন্ত তার কোনো খোঁজ পায়নি পুলিশ। মানুষের জীবন ব্যবসা করা এসব মানুষের কঠিন শাস্তি চেয়েছেন সবাই।

ঘটনার পর কথিত চিকিৎসক সাদ্দাম ওরফে নিবির ও আসাদুজ্জামান এর পরিচয় জানতে চেয়েছেন অনেকে। এ বিষয়ে বিভিন্নভাবে অনুসন্ধান চালানোর চেষ্টা করেছে খোঁজখবর ডটনেট। যতটুকু তথ্য বেরিয়ে এসেছে তাতেও গা শিউরে উঠে। প্রথমে আসা যাক, কথিত চিকিৎসক সাদ্দাম হোসেন নিবির এর কথায়। তার সম্পর্কে যতটুকু তথ্য পাওয়া গেছে, তার বাড়ি পার্শ্ববর্তী বড়াইগ্রাম উপজেলায়। ৩-৪ বছর ধরে চেষ্টা করে আসলেও তিনি এখনও এমবিবিএস পাশ করেননি। তিনি রংপুরের বেসরকারি মেডিকেল কলেজ প্রাইম মেডিকেল’র তৃতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থী। যার ইন্টার্নশিপ এখনও সম্পন্ন হয়নি। সুতরাং আইনগতভাবে তিনি অপারেশন করতে পারেননা।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, অপারেশনকারী ও সহকারির ঘটনাটা উল্টো। সাদ্দাম ওরফে নিবির নয়, বরং অপারেশন করার জটিল কাজটি করেন তার সহকারি হিসেবে যাকে বলা হচ্ছে সেই আসাদুজ্জামান। আর সাদ্দাম ওরফে নিবির-ই মুলত আসাদুজ্জামানের সহকারি। এবার আসা যাক আসাদুজ্জামাদের কথায়। বেশিরভাগ জায়গাতেই তিনি নান্নু ডাক্তার নামে পরিচিত। অপারেশন করার মতো প্রশিক্ষণ বা সনদপত্র তার নেই। ধরা পড়লে কোথাও নিজেকে মোস্তাফিজুর, কোথাও নান্নু, কোথাও আসাদুজ্জামান পরিচয় দেয়। আর নাটোর, বড়াইগ্রাম, গুরুদাসপুর, চাটমোহর, বনপাড়া সহ বিভিন্ন স্থানে ক্লিনিকে অপারেশন করেন এই আসাদুজ্জামান। বেশ কয়েকবার ভুল অপারেশন সহ নানা ঘটনায় ধরা পড়ে জরিমানাও দিয়েছেন। আর ধরা পড়ার পর সাদ্দাম ওরফে নিবির কে ডাক্তার হিসেবে পরিচয় দিয়ে নিজেকে সহকারি হিসেবে পরিচয় দিয়ে কৌশলে পার পেয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।

চলতি বছরের ৩ জুলাই ‘চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতাল’ নামের এই ক্লিনিকেই এনেস্থেসিয়া চিকিৎসক ছাড়া রোগীর অস্ত্রোপচার এবং অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে অস্ত্রোপচারের কারণে সাদ্দাম ওরফে নিবির এবং ক্লিনিক মালিককে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিষেষ্ট্রট। সেবারও সহকারি পরিচয় দিয়ে পার পেয়ে যায় আসাদুজ্জামান। সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে যে অপারেশন হয় চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে সেখানেও অপারেশন করেন এই আসাদুজ্জামান। অথচ পরিচয় দেন ভুয়া ডাক্তার সাদ্দাম ওরফে নিবিরের সহকারি হিসেবে।

তার পরিচয় সম্পর্কে বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. ডলি রানী জানিয়েছেন, তাদের অফিসিয়াল কাগজপত্রে তার আসল নাম আসাদুজ্জামান আছে। সে উপ-সহকারি মেডিকেল অফিসার। বড়াইগ্রাম হাসপাতালের নিয়ন্ত্রণে সে ধানাইদহ উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কর্মরত। বর্তমানে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার ডিউটিতে আছে সে। ডা. ডলি রানী আরো জানান, চাটমোহরের ক্লিনিকে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্তে দোষী হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আর একটি বিষয় উদ্বেগজনকভাবে লক্ষ্য করা গেছে, সাধারণত মানহীন ক্লিনিকগুলো কম মুল্যে অপারেশন করার অফার দেয়। যেকারণে চাটমোহরের অনেকে কম টাকায় অপারেশন করাতে গিয়ে ভুল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। ফলে ইসলামিক হাসপাতালের মতো নিম্নমানের ক্লিনিকে ভীড় জমান তারা। আর প্রায়ই ভুল অপারেশনে রোগী মৃত্যুর ঘটনা সংবাদ শিরোনাম হয়। এছাড়া চাটমোহরে দালাল চক্র আছে যারা কমিশন নিয়ে ক্লিনিকে রোগী পাঠান। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তোরণে দরকার কার্যকর পদক্ষেপ ও সচেতনতা।

সর্বশেষে একটি কথা ভুলে গেলে চলবে না যে, ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলুর ক্ষমতার উৎস কোথায় খুঁজে বের করতে হবে এবং প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে কিভাবে তিনি ব্যবসা করেন। যে ক্লিনিক সিলগালা করা হলো সেটা তিনি খুললেন কি করে, কার অনুমতিতে। এক্ষেত্রে ক্লিনিক পরিচালনায় যথাযথ নিয়মকানুন না মানায় সিভিল সার্জন অফিসও তাদের দায় এড়াতে পারে না। তাই ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলুকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। সেইসাথে যে দু’জনকে আটক করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

এদিকে, এ ঘটনায় এখনও (মঙ্গলবার বিকেল ৫টা) চাটমোহর থানায় মামলা হয়নি। যে কারণে আটক দুইজনের পূর্নাঙ্গ পরিচয় দিতে অপারগতা জানিয়েছে চাটমোহর থানা পুলিশ।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh