কাশীনাথপুরে পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের দুই গ্রুপ মুখোমুখি

মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১০:২৭ অপরাহ্ণ | 380 বার

কাশীনাথপুরে পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের দুই গ্রুপ মুখোমুখি
প্রতিকী ছবি
Advertisements

পাবনার বেড়া উপজেলার কাশীনাথপুরে জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নে সদস্য পদ না পেয়ে অফিস দখল করে আহবায়ক কমিটি গঠন করা ও আসন্ন নির্বাচন নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পড়া দুই গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে।

সোমবার এক গ্রুপের ৩ শ্রমিক নেতার উপর অপর গ্রুপের লোকজন হামলা চালিয়েছে। এসব নিয়ে আরও বড় ধরনের সংঘর্ষ ঘটে যেতে পারে বলে আশংকা করছে স্থানীয়রা।

জানা গেছে, সদস্যদের ভোটে নির্বাচিত হাকিম-মুক্তি কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে তারা গত ৩০ মার্চ সাধারণ সভা করে। আগামী ৩০ জুন-২০১৮ নির্বাচনের সম্ভাব্য তারিখ ঠিক করেছিল। নির্বাচন কমিশন গঠন করে তারা তফশিলও ঘোষণা করেছিল।

কিন্তু সাধারণ সভায় অপর গ্রুপের জনৈক আব্দুল হাই ও জয়নাল আবেদীনের সদস্য পদের আবেদন বাতিল হওয়ায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ওই নির্বাচনের বিপক্ষে অবস্থান নেয়। এক পর্যায়ে গত ৩০ মার্চ হাই-জয়নাল গ্রুপ অফিস দখল করে নেয়।

হাই-জয়নাল গ্রুপ অফিস দখলে নিয়ে এবং আগের কমিটি ভেঙে দিয়ে আহবায়ক কমিটি গঠনের মাধ্যমে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে। এদিকে অপর গ্রুপ অর্থ্যাৎ আগের নির্বাচিত কমিটি (হাকিম-মুক্তি) দাবি করছে আহবায়ক কমিটি গঠন করা ও এভাবে নির্বাচন পরিচালনা করা তাদের সংবিধান পরিপন্থী ও অবৈধ। তারা এখনও বৈধ কমিটির মালিক সত্ত্বেও তাদেরকে অফিসে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না।

সংগঠনটির নির্বাচিত সভাপতি আব্দুল হাকিম অভিযোগ করেন, হাই-জয়নাল গ্রুপে ২-৪ জন শ্রমিক ছাড়া সবাই বহিরাগত ও ভাড়াটিয়া। তিনি আরও জানান, সোমবার দুপুরে তাদের ৩ শ্রমিক নেতা কাশীনাথপুর মোড়ে প্রধান কার্যালয়ের সামনে গেলে বহিরাগতরা তাদের মারধর করে আহত করে। এরা হলেন- সাংগঠনিক সম্পাদক সেলিম হোসেন, লাইন সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু ও আকবর হোসেন।

সংগঠনটির নির্বাচিত সেক্রেটারি শাহ আলম মুক্তি জানান, তাদের সংবিধানে আহবায়ক কমিটির কোন বৈধতা নেই। অসাংবিধানিক এ নির্বাচনের বিরুদ্ধে শ্রম আদালতে একটি  মামলা (মামলা নং ৩৮/২০১৮) দায়ের করা হয়েছে। আদালত তা আমলে নিয়ে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর শুনানির দিন ধার্য করেছেন। কিন্তু তারপরও তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপ কথিত নির্বাচনী কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

এদিকে আব্দুল হাই জানান, তাদের সাথে বহু শ্রমিক রয়েছেন। তারা নিয়ম মেনেই নির্বাচন করছেন।

আমিনপুর থানার ওসি আবু ওবায়েদ জানান, শ্রমিক ইউনিয়নের অফিস বেদখল বা শ্রমিক নেতাদের উপর হামলার বিষয়ে পুলিশ কিছুই জানে না।

শ্রম অধিদপ্তরের উপ-শ্রম পরিচালক নাসির উদ্দিন জানান, এ বিষয়টি এখন শ্রম আদালতে গড়িয়েছে। তাই এখন আদালতের সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh