কারণ অনুসন্ধানে আইইডিসিআর’র ৫ সদস্যের দল

এক গ্রামে ডায়রিয়ায় দু’দিনে আক্রান্ত শিশুসহ ১৫৮ ; হাসপাতালে ভর্তি ৫৩

সোমবার, ০৮ জুলাই ২০১৯ | ৮:০১ অপরাহ্ণ | 304 বার

এক গ্রামে ডায়রিয়ায় দু’দিনে আক্রান্ত শিশুসহ ১৫৮ ; হাসপাতালে ভর্তি ৫৩
ডায়রিয়া আক্রান্ত এলাকা পরিদর্শণে স্বাস্থ্য বিভাগের উর্ধ্বতম কর্মকর্তারা
Advertisements

পাবনা সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামে খিচুরীর বিষক্রিয়ায় ডায়রিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। গত দু’দিনে এই গ্রামের ১৫৮ জন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ৫৩ জনকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে ভয়ের কোনো কারণ নেই বলে দাবি পাবনা স্বাস্থ্য বিভাগের। একই এলাকার এতবেশি সংখ্যক মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার কারণ অনুসন্ধানে ঢাকা থেকে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আই ই ডি সি আর) ৫ সদস্যের তদন্ত দল সোমবার পাবনার বলরামপুর গ্রামে কাজ শুরু করেছেন।

জানা গেছে, পাবনা সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের মরহুম ঈমান আলীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে গত শুক্রবার (০৫ জুলাই) দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে স্বজনরা। দোয়া মাহফিল শেষে উপস্থিত এলাকাবাসীর মাঝে তাবারক হিসেবে খিচুরী বিতরণ করা হয়। অনেকেই সেই খিচুরী বাড়িতে নিয়ে যান এবং শনিবার সকালেও সেই খিচুরী খায়। শনিবার রাত থেকে তাদের প্রথমে জ¦র পরে বমি ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়। এরপর একে একে অসুস্থ্য রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি করে স্বজনরা।

রোববার পর্যন্ত পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৯ জন থাকলেও আজ সোমবার দুপুরে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শিশুসহ ৫৩ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর আক্রান্ত এলাকায় অনুসন্ধানে গিয়ে মোট ১৫৮ জনকে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পেয়েছে পাবনার স্বাস্থ্য বিভাগ। এ ঘটনায় সুমাইয়া আক্তার সুখী (১৪) নামের এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।

আক্রান্ত রোগীর স্বজনরা জানান, মিলাদের খিচুরী খাওয়ার পর থেকে তাদের মধ্যে প্রথমে জ¦র, পরে বমি ও পাতলা পায়খানা শুরু হলে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাবে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে এলাকাবাসীর মাঝে।

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী ইকবাল জানান, আক্রান্ত এলাকায় জীবানুমক্ত করতে ব্লিচিং পাউডার ছিটানো হয়েছে। একাধিক মেডিকেল টিম সার্বক্ষনিক স্বাস্থ্যসেবায় কাজ করছে। পর্যাপ্ত ওষুধ সরবরাবহ রয়েছে। নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত তারা কাজ করবে জানান তিনি।

এদিকে, হঠাৎ করে একই এলাকার এতবেশি সংখ্যক মানুষ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। কারণ অনুসন্ধানে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আই ই ডি সি আর) ৫ সদস্যের তদন্ত দল সোমবার পাবনায় গিয়ে কাজ শুরু করেছে।

সেইসাথে রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য আক্রান্ত এলাকা পরিদর্শণ করেছেন। তিনি জানান, আই ই ডি সি আর এর অনুসন্ধান দল কাজ করছে, তারা নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করার পর বিস্তারিত জানা যাবে। তবে ভয়ের কোনো কারণ নেই। পরীক্ষা নীরিক্ষার পর আসল কারণ জানা যাবে বলে জানান তিনি।

আই ই ডি সি আর’র অনুসন্ধান দলের প্রধান মেডিকেল অফিসার ডা. ফেরদৌস রহমান জানান, তারা এলাকা পরিদর্শণ ও অসুস্থ্য রোগী এবং তাদের স্বজনদের সাথে কথা বলেছেন। রোগীদের বিভিন্ন নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছেন। পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে ডায়রিয়ার কারন।

ঘটনার পর জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের তিনটি মেডিকেল টিম ডায়রিয়া নিয়ন্ত্রণে সার্বক্ষনিক কাজ করছে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh