আ’লীগের দুই নেতার সংবাদ সম্মেলনে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

শনিবার, ২০ নভেম্বর ২০২১ | ১:১৭ অপরাহ্ণ | 88 বার

আ’লীগের দুই নেতার সংবাদ সম্মেলনে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

আসন্ন পার-ভাঙ্গুড়া ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পাবনার ভাঙ্গুড়ায় স্থানীয় আওয়ামীলীগের দুই নেতা সংবাদ সম্মেলন করে পাল্টাপাল্টি অভিযোগের তীর ছুঁড়েছেন। শুক্রবার বিকেলে ও সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এক অপরের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরে বক্তব্য দেন।

বিকেল পৌনে চারটায় উপজেলার ভেড়ামারা বাজারে সংবাদ সম্মেলন করেন পার-ভাঙ্গুড়া ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন প্রত্যাশী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মধূ ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী হেদায়েতুল হকের দলীয় কোন পদ পদবি নাই। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লোকমান হোসেনের ভাগ্নে ও জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান বাকি বিল্লাহর ভাই। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হেদায়েতুল হককে উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটির সদস্য পদবি উল্লেখ করে দলীয় মনোনয়ন বোর্ডে তালিকা প্রেরণ করেছেন। তাকে দলীয় মনোনয়ন পাইয়ে দিতে তাদের মনগড়া মিথ্যা তথ্য কেন্দ্রে প্রেরণ করেছেন।

এ সময় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির লিটন, ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বাদল খান, হাজী শওকত আলী, আব্দুল হাই প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে দলীয় কার্যালয়ে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লোকমান হোসেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘দলীয় মনোনয়ন নিয়ে জাহাঙ্গীর আলম মধু আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছেন। ষড়যন্ত্র হিসেবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য তিনি আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনেছেন । তিনি বলেন, দলীয় মনোনয়ন দেবেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ । এখানে আমার কিছুই করার নাই ।’

তিনি অভিযোগ করেন, জাহাঙ্গীর আলম মধু বিগত ২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে গিয়ে ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচন করেন। ২০১৮ সালের সংসদ নির্বাচনে তিনি নৌকার মনোনীত প্রার্থী মকবুল হোসেনের বিরুদ্ধে গিয়ে  হাসানুল ইসলাম রাজার সিংহ মার্কার পক্ষে নির্বাচন করেন। ২০০৯ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে জামানত হারান।

লোকমান হোসেন বলেন, চেয়ারম্যান থাকাকালে জাহাঙ্গীর আলম মধু দুইবার টাকার বিনিময়ে একজন ইউপি সদস্যকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারেম্যানের দায়িত্ব দিয়ে অবসরে থাকেন। তখন থেকেই তিনি জনসাধরণের বিমুখ হয়ে পড়েন । আর এবার দলীয় মনোনয়ন পেতে নানা ষড়যন্ত্র ও ছক কষছেন। তারই অংশ হিসেবে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ তুলছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জাকির হোসেন ছবি, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান প্রধান, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র গোলাম হাসনাইন রাসেল, মনোনয়ন প্রত্যাশী হেদায়েতুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

আইটি সাপোর্ট ও ম্যানেজমেন্টঃ Creators IT Bangladesh

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টঃ WebNewsDesign