চাটমোহরে প্রাথমিক শিক্ষকদের সন্তানের শিক্ষাভাতা কর্তনের অভিযোগ

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ৭:১১ অপরাহ্ণ | 553 বার

চাটমোহরে প্রাথমিক শিক্ষকদের সন্তানের শিক্ষাভাতা কর্তনের অভিযোগ
চাটমোহর উপজেলা শিক্ষা অফিস
Advertisements

কোনো নিয়মনীতি না থাকলেও পাবনার চাটমোহরে প্রাথমিক শিক্ষকদের সন্তানের সরকার প্রদত্ত শিক্ষাভাতা কর্তনের অভিযোগ উঠেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল ইসলামের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষকদের সন্তানরা কেন প্রাথমিক স্কুল বাদ দিয়ে কিন্ডারগার্ডেন কিংবা অন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পড়বে-এমন কারণ দেখিয়ে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক তিনি ভাতা বন্ধ করে দেন বলে দাবি ওই শিক্ষা কর্মকর্তার। তবে নভেম্বর মাসে বেতনের সাথে শিক্ষাভাতা দিয়ে দেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

সরকারী পরিপত্র অনুযায়ী জানা গেছে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে শিক্ষকসহ সকল সরকারি চাকুরীজীবীদের সন্তানদের শিক্ষা ভাতা হিসেবে একটি সন্তানের জন্য মাসিক ৫শ’ টাকা হারে সর্বচ্চ দু’টি সন্তানের এই শিক্ষা ভাতা প্রযোজ্য আছে। কিন্তু সরকারের এই সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে চাটমোহর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হঠাৎ করে গত সেপ্টেম্বর’১৯ মাস থেকে চাটমোহর উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সন্তানদের প্রাপ্ত শিক্ষা ভাতা কর্তন করে দেন। কোনো নোটিশ ছাড়া শিক্ষাভাতা কেটে দেয়ায় শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রাথমিক শিক্ষক জানান, তারা সরকারি চাকুরী করেন। তাদের সন্তানকে তারা কোথায় পড়াশুনা করাবেন, সে সিদ্ধান্ত তাদের পরিবারের। সরকারীভাবে তো কোনো নির্দেশনা আসেনি যে শিক্ষকদের সন্তানদের প্রাথমিক স্কুলেই পড়াতে হবে। তাহলে চাটমোহরের শিক্ষা কর্মকর্তা নিজে কেন এমন সিদ্ধান্ত নিলেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আশরাফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০১৬ সালের একটি পরিপত্রে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষকদের সন্তানদের প্রাথমিক স্কুলে পড়ানোর নির্দেশনা রয়েছে। তাছাড়া উপজেলা শিক্ষা কমিটিতে রেজুলেশন করে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, যে যেসকল শিক্ষক তাদের সন্তানকে প্রাথমিক স্কুলে পড়াবেন না, তাদের শিক্ষাভাতা কেটে দেয়া হবে। সেজন্য ভাতা কেটে সতর্ক করে দেয়া হয়।

তবে ওই পরিপত্রে শিক্ষকরা তাদের সন্তানদের প্রাথমিক স্কুলে না পড়ালে কি বিধান বা শাস্তি সে বিষয়ে কিছু আছে কি না জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বলেন, সেরকম কোনো শাস্তির কথা সেখানে উল্লেখ নেই। পরবর্তীতে এটা নিয়ে যেহেতু সমালোচনা হয়েছে সে কারণে শিক্ষা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক নভেম্বর মাসের বেতনের সাথে শিক্ষাভাতা দিয়ে দেয়া হবে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কমিটির সভাপতি ও চাটমোহর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল হামিদ মাষ্টার জানান, ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে বেশ কিছু শিক্ষক আমাকে জানিয়েছে। আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখে জানলাম শিক্ষা কর্মকর্তা বিষয়টি ঠিক করেননি। তবে তাকে শিক্ষকদের সন্তানের এই শিক্ষাভাতা চালু করে দেওয়ার কথা বলেছি।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১  
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!