আহম্মদপুরে আ’লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে বাড়ি-ঘর ভাংচুর : আহত ১০

সোমবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২০ | ১:১৯ অপরাহ্ণ | 182 বার

আহম্মদপুরে আ’লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে বাড়ি-ঘর ভাংচুর : আহত ১০
Advertisements

পাবনার সুজানগরে উপজেলা আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে পূর্ব বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষ ও বাড়ি-ঘর ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। রোববার দুপুরে সুজানগর উপজেলার আহম্মদপুর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১০ জন আহত এবং ১০/১২টি বাড়ি ভাংচুরের পর লুটপাট চালানো হয় বলে অভিযোগ ক্ষতিগ্রস্থদের।

স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার সন্ধ্যায় আহম্মদপুর ইউনিয়নের বিরাহিমপুর মীর্জা আব্দুর রশিদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় আওয়ামীলীগ এক বর্ধিত সভার আয়োজন করে। সভায় বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বাবু গ্রুপ এবং আব্দুর রশিদ গ্রুপের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। আনোয়ার হোসেন বাবু উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক শাহিন চেয়ারম্যানের সমর্থক এবং আব্দুর রশিদ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ওহাব গ্রুপের সমর্থক।

সম্প্রতি আহম্মদপুর ইউনিয়ন পরিষদে ইউপি সদস্য নির্বাচনে আব্দুর রশিদ ও তার লোকজন প্রয়াত ইউপি সদস্যর স্ত্রীর পক্ষে ভোট করায় পরাজিত হলে বিজয়ী ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন বাবু ও তার পক্ষের লোকজন তাদের পক্ষে ভোট না করায় রোববার দুপুর দেড়টার দিকে বাবু গ্রুপের লোকজন রশিদ গ্রুপের ওপর হামলা চালিয়ে উপর্যুপুরি মারপিট দেয়। এতে রশিদসহ তার গ্রুপের অন্তত ১০ জন আহত হয়। এ সময় হামলাকারীরা রশিদ গ্রুপের লোকজনের প্রায় ১০/১২টি বাড়ি-ঘর ভাংচুর এবং লুটপাট চালায় বলে দাবী ক্ষতিগ্রস্থ মজিদের স্ত্রী আফরোজা খাতুনের।

ক্ষতিগ্রস্থ দেলোয়ারের স্ত্রী শাহানাজ খাতুন অভিযোগ করেন, ‘রশিদ গ্রুপের সমর্থক হওয়ায় আমার স্বামী দেলোয়ার হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান তাঁত ঘরে হামলা চালিয়ে কমপক্ষে ১০টি তাঁতের সুতার রিম কেটে নষ্ট করে দেয় সন্ত্রাসীরা। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করছি। আওয়ামীলীগ করে বলে ওই সন্ত্রাসীরা আমাদের এমন ক্ষতি করে দিলেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় আ’লীগ নেতা আনোয়ার হোসেন বাবু বলেন, আমি বা আমার লোকজন হামলা করে নাই। উল্টো রশিদ গ্রুপের লোকজন হামলা চালিয়ে আমার ৪ জন লোককে মারপিট করেছে বলেও দাবি করেন তিনি। তবে এই ঘটনায় আব্দুর রশিদের বাড়ি গিয়ে ভাংচুর দেখা যায় এবং উপস্থিত লোকজন বলেন, ইউপি সদস্য বাবুর নেতৃত্বে তার লোকজন এ হামলা চালিয়েছে।

এদিকে সংর্ষের ঘটনায় আহম্মদপুর ইউনিয়নের চব্বিশমাইল দূর্গাপুর গ্রামের আব্দুর রশিদ গ্রুপের আব্দুর রশিদসহ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক রাসেল পারভেজ বাবু, রফিকুল ইসলাম, আব্বাস আলী, সুমন হোসেন, আব্দুল আওয়াল, শুভ প্রামানিক, সন্টু প্রামানিক কে গুরুতর আহত অবস্থায় পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। অপরদিক ইউপি সদস্য বাবুর পক্ষের সরোয়ার হোসেন ও ফরজ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীনুজ্জামান শাহিন বলেন, আমি ওই সভায় উপস্থিত ছিলাম না। আর এই ঘটনার সাথে আমার লোকজনের সম্পৃক্ততা নেই।

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র আব্দুল ওহাব বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিনের লোকজন দলের ত্যাগী নেতা কর্মীদের বাড়িঘর ভাংচুর ও হামলা চালিয়েছেন। আমার লোকজনকে মারপিট করে পুলিশ দিয়েও হয়রানী করাচ্ছেন।

আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় থানায় উভয় পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্তের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
khojkhobor.net-এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Development by: webnewsdesign.com

error: Content is protected !!